YOU ARE HERE: Khola-Janala : Life Style

Home [X]


 

কাটওয়র্ক

কাটওয়র্ক কি?
পাকানো সুতা দিয়ে হাতে সেলাই করা একটি বিশেষ নকশার নাম কাটওয়র্ক। এই এমব্রয়ডারিতে কখনো কখনো পুঁতি, চুমকি ও অন্যান্য অ্যাক্সেসরিজ ব্যবহার করা হয়। কাটওয়র্কের রয়েছে নিজস্ব কিছু মোটিফ। কালান্তরে এতে যোগ হয়েছে ফিউশন।
 

পদ্ধতি
সুতি, লিলেন, সিল্ক, মসলিন, জামদানি, কাতানসহ প্রায় সব ধরনের কাপড়ে কাটওয়র্ক সুন্দর মানিয়ে যায়। তবে খেয়াল রাখা হয় সুতার রঙ ও ঘনত্ব যেন সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়। বড়দের বেলায় তো বটেই, শিশুপোশাকেও এর বহুল ব্যবহার লক্ষণীয়। কাটওয়র্ক সাধারণত রানফোঁড় ও বোতাম ফোঁড় দিয়েই করা হয়। কাটওয়র্ক সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলার জন্য রয়েছে বেশ কিছু পদ্ধতি। নিয়মিত চর্চায় এসব নকশা আরও দীপ্তি ছড়ায়। কাটওর্কের সাধারণ পদ্ধতিটি এখানে উল্লেখ করা হলো। ইচ্ছেমতো চেষ্টা করে দেখতে পারেন-

১. প্রথমে একটি একরঙা কাপড় নিন। এবার বেছে নিন পছন্দসই নকশা।
২. কাপড়ে নকশা এঁকে কাটওয়র্কের অংশটুকু বাদ দিয়ে বাকি অংশ ইচ্ছেমতো রঙিন সুতা দিয়ে সেলাই করে নিন।
৩. এবার কাটওয়র্কের অংশটুকু কেটে তার চারপাশে রান বা বোতাম ফোঁড় দিন। ব্যস হয়ে গেল কাটওয়র্ক।

 

 

বাংলাদেশে কাটওয়র্ক
আমাদের পোশাক-নকশায় কাটওয়র্ক দখল করে আছে এক বিশেষ জায়গা। আমরা একে খাঁটি দেশি নকশা হিসেবে গণ্য করলেও এর জন্ম কিন্তু ভিনদেশে। ইতিহাস থেকে জানা যায় পারস্য, বাইজান্টাইন, ইংল্যান্ড, ভারত উপমহাদেশে এর চর্চা ছিল। আর বাংলাদেশে এর সূচনা ঘটে পাকিস্তান আমলে। শুরুতে অভিজাতদের অন্দরমহলে এর চর্চা থাকলেও পরে তা চলে আসে সব শ্রেণী-পেশার মানুষের পোশাকে।

 

অনুসন্ধানে জানা গেচে, কাটওয়র্কের সুতা, অ্যাক্সেসরিজ আগে চীন ও ভারত থেকে আমদানি করা হতো। অবশ্য এসব আজকাল দেশেই তৈরি হচ্ছে।

ভারতীয় ডিজাইন পেছনে ফেলে ক্রমম বেশ প্রাধান্য পাচ্ছে দেশি আইডিয়া। গাউছিয়া মার্কেটের অজন্তা এমব্রয়ডারি জরির স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ জাবেদ (বংশানুক্রমিকভাবে যার চার পুরুষ কাটওয়র্ক শিল্পী) জানান,

 


বাংলাদেশের কাটওয়র্ক এমব্রয়ডারি, কাটওয়র্কের কাপড়, সুতা, অ্যাক্সেসরিজ, মজুরি তুলনামূলক বেশি বলে এক্সকুসিভ আইটেম হিসেবে ফ্যাশন হাউসে এগুলো শোভা পায়।

খরচাপাতি
কাটওয়র্ক এমব্রয়ডারির দিনপ্রতি মজুরি ২০০-৩০০ টাকা। তাতাল দিয়ে খুব সূক্ষ্মভাবে কাজটি করা হয় বলে মজুরি একটু বেশিই। নিজের ইচ্ছেমতো আপনিও কাটওয়র্ক করতে পারেন। ধারে কাছের যেকোনো সুতার দোকান থেকে কিনে নিতে পারেন পছন্দসই সুতা, বিডস ও দরকারি অ্যাক্সেসরিজ।

এসব পাবেন ১০ থেকে ১০০০ টাকায়। সবশেষে বলি, নিজেই তৈরি করে নিন নকশাদার সুন্দর শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, বেড কভার, কুশন কভার।

.... আগে যা ছিল.

ফ্যাশনে ওড়না
কাতানে আভিজাত্য
আনারকলির ফ্যাশন
ফ্যাশনাবল খাদি
শার্ট যখন নারীর রাজ্যে
টপস এখন হিট ফ্যাশন
লেস এবং নেটের শাড়ী
আট পৌরে বসন্তী সাজ
আধিবাসী ধাচেঁ সমতলের ফ্যা
সাদার স্নিগ্ধতায় স্বস্তি
ঈদে তারুন্যের পছন্দ
কাটওয়র্ক
 

 Under this category : Travel and Living : Life Style : Making Money on the NET

...

Articles are submitted to Here are licensed from various content sites
To report abuse, copyright ? issues, article removals, please contact [
webmaster@khola-janala.com]

Contact Khola-Janala